কৃত্রিম উপায়ই সৃষ্টি হচ্ছে প্রাকৃতিক দূর্যোগ

নিউজ ইভেন্ট ২৪ ডটকম/আর

০২ আগস্ট ২০১৭,বুধবার, ১৮:২৪

দিনকে দিন প্লাস্টিকের ব্যবহার বাড়ছেই । সঙ্গে উৎপাদনের বৃদ্ধি ভাবিয়ে তুলছে বিজ্ঞানীদের।তাদের ধারণা এভাবে চলতে পৃথিবী একদিন পাস্টিকের গ্রহে পরিণত হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীদের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমান পৃথিবীতে উৎপাদিত প্লাস্টিকের পরিমাণ ৮.৩ বিলিয়ন টন। আর ২০৫০ সালে তা দাঁড়াবে ১২ বিলিয়ন টনে।

প্লাস্টিকের স্থায়িত্ব এবং উপযোগিতার কারণেই ইস্পাত, সিমেন্ট এবং ইট ছাড়া মানুষের তৈরি আর সব কিছু থেকে এই জিনিসটির উৎপাদন হার বেশি। এর পরিমাণ বর্তমানে নিউ ইয়র্ক সিটির ২৫ হাজার এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংয়ের সমান বা এক বিলিয়ন হাতির ওজনের সমপরিমাণ।

আর এই বিশাল পরিমাণ উৎপাদিত প্লাস্টিকের প্রায় ৭৯ শতাংশই ছড়িয়ে পড়েছে প্রকৃতিতে। প্লাস্টিক সহজে মাটিতে মিশে যায় না এবং পচনশীল নয় তাই এই প্লাস্টিক ব্যাপক হারে ক্ষতিগ্রস্ত করছে পৃথিবী ও এর পরিবেশকে।

ড. রোল্যান্ড গেয়ার বলেন, 'পৃথিবী খুব দ্রুতই প্লাস্টিকের তৈরি গ্রহে পরিণত হবে। আর আমরা যদি এমন বিপর্যয় থেকে বাচতে চাই, তাহলে প্লাস্টিকের তৈরি জিনিস ব্যবহার নিয়ে আমাদের এখনই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।'

সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার একদল গবেষক প্লাস্টিকের উৎপাদন, ব্যবহার ও দূষণ সম্পর্কে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছেন। যেখানে দেখা যায়, এই বিপুল পরিমাণ প্লাস্টিক পণ্যের প্রায় অর্ধেকই উৎপাদন হয়েছে গত ১৩ বছরে।

প্লাস্টিক পুনর্ব্যবহারের সুযোগও সীমিত। এখন পর্যন্ত মাত্র ৯ ভাগ পুনর্ব্যবহার হয়েছে । ১২শতাংশকে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে আর বাকিটা পরিত্যক্ত অবস্থায় ফিরেছে প্রকৃতিতে।

পাশাপাশি, আশংকাজনক হারে এই প্লাস্টিক ছড়িয়ে পড়েছে সাগরে। গবেষণা বলছে, ২০১৪ সালে রিসাইক্লিং বা পুনর্ব্যবহারযোগ্য হার ইউরোপে ছিল শতকরা ৩০ভাগ। সবচেয়ে কম রিসাইক্লিং হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে, মাত্র ৯ শতাংশ। আর এই অধিকহারে উৎপাদন শুরু হয় ১৯৫০ এর সময় থেকে।

 

 

 


প্রতিদিনের খবরগুলো ফেসবুকে পেতে নিচের লাইক অপশনে ক্লিক করুন-

Logo

সম্পাদক: পল্লব মুনতাকা। জ্যাকম্যান, মেডওয়ে, ইউএসএ
ইমেইল: mail.newsevent24@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | newsevent24 2017